চট্টগ্রাম কাস্টমসে ৪২মামলায় সাড়ে ৫ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়

0
120

মোরশেদুল আলম চৌধুরী-স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের প্রধান রাজস্ব আদায়কারী প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম কাস্টমসের অডিট ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড রিসার্চ (এআইআর) শাখায় চলতি বছরের অক্টোবর মাসে নানা অনিয়মের কারণে আমদানিকারকদের বিরুদ্ধে ৪২টি মামলা দায়ের হয়েছে। ঘোষণার সাথে আমদানিকৃত পণ্যের পরিমাণগত তারতম্য, এক পণ্যের ঘোষণা দিয়ে অন্য পণ্যের আমদানিসহ নানা জালিয়াতির কারণে এসব মামলা দায়ের করে কাস্টম কর্তৃপক্ষ। ৪২টি মামলার মধ্যে ২২টি সাধারণ মামলা এবং ২০টি জিপি শিট মামলা।

মামলার পাশাপাশি অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৫ কোটি ৫৭ লক্ষ ৯৮ হাজার ২৫৭.৮২ টাকা। এর মধ্যে সাধারণ মামলায় আদায় হয়েছে ৪ কোটি ৩৩ লক্ষ ৮৪ হাজার ৮৮৭.০৬ টাকা এবং জিপি শিট মামলায় আদায় হয়েছে ১ কোটি ২৪ লক্ষ ১৩ হাজার ৩৭০.৭৬ টাকা।

সাধারণ মামলায় সবচেয়ে বেশি জরিমানা গুনতে হয়েছে ঢাকার বাণিজ্যিক আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান ওয়াইএস ইন্টারন্যাশনালকে। প্রতিষ্ঠানটি গ্লাস ওয়্যার আমদানির ঘোষণা দিয়ে গার্মেন্টস পণ্য আমদানি করে। ওয়াইএস ইন্টারন্যাশনাল এর পক্ষে সিএন্ডএফ এজেন্ট হিসেবে কাজ করে আরএম এসোসিয়েটস।

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের এআইআর শাখা সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের শুরুতে জুলাই মাস থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এই শাখায় মামলা হয়েছে ৮৩ টি এবং জিপি সিট মামলা হয়েছে ৫৩ টি। গত চার মাসে মোট মামলার সংখ্যা ১৩৬। মামলার পাশাপাশি অতিরিক্ত আদায়কৃত রাজস্বের পরিমাণ ২১ কোটি ১৪ লক্ষ ২০ হাজার ১৪.৭৭ টাকা। এর মধ্যে সাধারণ মামলায় অতিরিক্ত রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। গত চার মাসে সাধারণ মামলায় অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় হয়েছে ১৮ কোটি ৩৪ লক্ষ ৮২ হাজার ৯৯৪.৪৩ টাকা এবং জিপি সিট মামলা হতে রাজস্ব আদায় হয়েছে ২ কোটি ৭৯ লাখ ৩৭ লাখ ২০.৩৪ টাকা।

গত ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে কাস্টমস হাউজের এআইআর শাখায় সাধারণ এবং জিপি সিট খাতে মামলা দায়ের হয়েছিল ৪৯১ টি। অরিতিক্ত রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিলো ৩৩ কোটি ২৬ লাখ ৫৮ হাজার ৬৪৩.০২ টাকা।

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের এআইআর শাখার আরও সুলতান আহমদ বলেন, আমদানি ও রপ্তানিকারকরা যাতে কোন ধরনের প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত না হতে পারে সেজন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। কাস্টমস কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে সচেষ্ট। যে কোন প্রতিষ্ঠান তথ্য গোপন করে পণ্য আমদানি করলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা এবং জরিমানা সহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।