ফেসবুকে সাংবাদিকের নামে মিথ্যা মানহানিকর মন্তব্য করায় তথ্য আইনে অভিযোগ দায়ের!

0
77

লালমনিরহাট প্রতিনিধি :
১৪ ই এপ্রিল মঙ্গলবার কালীগঞ্জে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে মানহানিকর মন্তব্য্ করায় এক যুবকের বিরুদ্ধে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
ঘটনার বিবরনে জানা যায়, দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক এম শহিদুল ইসলাম নামের নিজ ফেসবুক আই ডি’র একটি স্ট্যাটাসে মিথ্যা মানহানিকর মন্তব্য্য করে কথিত ভুয়া সাংবাদিক ও সাংবাদিক পরিচয়দানকারী ই. জেড মুন্না পুরো নাম ( ঈশাত জাহান মুন্না)।
ঈশাত জাহান মুন্না চরবৈরাতি গ্রামের এন জামান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আলহাজ্ব জামাল উদ্দিনের ছেলে।
বাদী নুর আলমগীর অনু দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ এবং দৈনিক আলোকিত সকাল পত্রিকার কালীগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি হিসাবে সাংবাদিকতা করে আসছেন। গত ১২ ই এপ্রিল নূর আলমগীর অনু’ র নামে বিভিন্ন মিথ্যে মানহানিকর বাজে মন্তব্য সোস্যাল মিডিয়ায় করায় তিনি কালীগঞ্জ থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সুত্রে বলা হয় ঈশাত জাহান মুন্না র মন্তব্য সম্পুর্ন মিথ্যা,ভিত্তিহীন, বানোয়াট, কুরুচিপুর্ণ , মানহানিকর।
এ বিষয়ে অভিযোগ দায়েরকারী সাংবাদিক নুর আলমগীর অনু বলেন, কিছুদিন পুর্বে ভুয়া কথিত সাংবাদিক ঈশাত জাহান মুন্না সাংবাদিক নিয়োগের নামে পলাশ চন্দ্র পিতা দিবেশ চন্দ্র। সাং দক্ষিন ঘনেশ্যাম। এর নিকট ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলে উক্ত টাকা দরিদ্র অসহায় ছেলেটিকে উদ্ধার করে দেওয়ায় সে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মানহানিকর তথ্য সোসাল মিডিয়ায় মন্তব্য শুরু করে। এমনকি বিভিন্ন হুমকি- ধামকি প্রদান করে এ বিষয়টি আমার নজরে আসার সাথেই আমি কালীগঞ্জ থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে অভিযোগ দায়ের করেছি।
এ বিষয়ে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের এস আই সাইদুল অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেন। এবং তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।
ঈশাত জাহান মুন্নার বিষয়ে স্থানীয় লোকজন জানান, ছেলেটি মাদকসেবী ও পরিবহনের সাথে জড়িত এবং এলাকার উকতি বয়সের ছেলেদের মাদকের উৎসাহিত করছে। তার এহেন কর্মকান্ডে তার পরিবার তাকে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে দিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি।