বেনাপোল পৌরসভা ব্যর্থ হওয়ায় স্থানীয় ছাত্রলীগের উদ্যাগে রাস্তা সংস্কার শুরু

0
38

মোঃখসরুনোমান,যশোর প্রতিনিধি :- যশোরের বেনাপোল পৌরসভার আওতাভুক্ত ভবারবেড় ৬নং ওয়ার্ড রেল স্টেশন সংলগ্ন বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন সড়কটি দীর্ঘ কয়েক বছর যাবত অবহেলিত ,খানা-খন্দে গ্রামবাসীর গলার কাটায় পরিনত হওয়ায় গ্রামবাসী ও স্থানীয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এই বীর মুক্তিযোদ্ধা নামক সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে। রাস্তা সংস্কার এই মহৎ উদ্যোগটি গ্রহন করেছেন শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মাদ আওয়াল হোসেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন সড়ক নামসহ প্রথম অবস্থায় বেনাপোল পৌরসভা কর্তৃপক্ষ তৈরী করে দেয়। কিন্তু তারপর থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক মতভেদ ও অদৃর্শের ছায়ার কারনে রাস্তাটি আজ পর্যন্ত পৌরসভা কর্তৃপক্ষ একটি বারও তিল পরিমান সংস্কার কাজ করেনি।

রাস্তাটি সংস্কারের জন্য কয়েক দফা পৌর মেয়র অাশরাফুল আলম লিটনের বরাবর আবেদন করেন ভবারবেড় গ্রামবাসী। এতবার আবেদন করেও আজও অবদি কোন ব্যবস্থা নেয়নি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।এর ফলে ব্যর্থ হয়ে গ্রামবাসী ফিরে আসেন ৷ বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দীন সড়কটির করুন,বেহাল, জরাজীর্ন অবস্থা থাকায় গ্রামবাসির প্রচন্ড আকারে যাতায়াতের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। হাইরাস্তা থেকে নীচে (গ্রামে) নামতে গেলেই মারাত্নক ভাবে অনেকে পাশের গর্তে যানবাহন নিয়ে পড়ে গিয়ে আহত হয়েছে। প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে বিভিন্ন কাজের জন্য প্রায় ৩ হাজার থেকে ৫ হাজার লোকজন চলাচল করে ৷ স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী ও হাসপাতালগামি রোগীদের চলাচলে মারাত্বক অসুবিধার সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে বেনাপোল পৌরসভার প্রকৌশলী ও প্যানেল মেয়রের সাথে কথা বললেও তারা রাস্তাটির কোন সংস্কারের ব্যবস্থা করেনি ৷ এ বিষয়ে পৌর কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ ১২ বছর ধরে নিরব ভূমিকা পালন করেছে৷ গ্রামবাসী অভিযোগ করে বলেন গুম হওয়া তাদের নির্বাচিত কমিশনার তুহিন থাকলে অনেক আগেই এই রাস্তাটির সংস্কার কাজ হয়ে যেত।তারা আরও বলেন আমাদের ভোটে নির্বাচিত পৌরসভার মেয়র আজ পর্যন্ত গ্রামবাসীর সুখ দুঃখের কথা একটিবারের জন্য শুনতে আসেনি৷ বেনাপোলের অন্যান্য স্থানের মতো বিন্দু পরিমান উন্নয়নের ছোঁয়া এই ভবারবেড় গ্রামে লাগেনি । গ্রামবাসীর এই রকম অবস্থা বিদ্যমান থাকায় তাদের দুঃখ দুর্দশা দেখে শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সমাজ কল্যান বিষায়ক সম্পাদক আওয়াল হোসেন এর মহৎ উদ্যোগে দুপাশের পুকুর থেকে মাটি সংগ্রহ করে রাস্তাটির ভরাটের কাজ শুরু করেছেন নিজের অর্থায়নে ৷

এ বিষয়ে আওয়াল হোসেন এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন, যে স্থানীয় দলীয় কোন্দল বা ভবারবেড় পশ্চিমপাড়ার এলাকাবাসী শেখ আফিল উদ্দিনের পক্ষে কাজ করায় পৌর কর্তৃপক্ষ এই রাস্তাটি করতে পারবে না বা করবে না তাই আমি আমার ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতার থেকে এই রাস্তাটি সংস্কার করার উদ্যোগ নিয়েছি এবং কাজ করছি ৷তবে এটা একটি বড় বাজেটের কাজ বিধায় আমি গ্রামবাসীর দ্বারা রাস্তাটি সম্পূর্ণ ইটের সলিং বা কংক্রিটের করা সম্ভব না তাই আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ৷ যাতে আমাদের একমাত্র যাতায়াতের এই রাস্তাটি কংক্রিটের করা হয় তার সুব্যবস্থা করবেন ৷