যশোর৮৫-(শার্শা-১)আসনে নির্বাচনি প্রচারে এগিয়ে শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

0
43

মোঃখসরুনোমান সংগ্রাম, যশোর প্রতিনিধি : উৎসবমুখর পরিবেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা শুরু হয়েছে। ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর প্রচারণা শুরু করেন প্রার্থীরা ও তাদের স্থানীয় সমর্থকরা।

যশোর – ১ (শার্শা) আসনও এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নয়। এ আসনের বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে শোভা পাচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিনের পোষ্টার। নির্বাচন কমিশনের আইন মেনে আফিল উদ্দিনের সাদা-কালো পোষ্টারে ভরে গেছে এলাকা জুড়ে। যদিও এক্ষেত্রে পিছিয়ে রয়েছে অন্যন্য প্রার্থীরা।

এই আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন এমপি ।

এ আসনে বিএনপির ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করছেন মফিকুল হাসান তৃপ্তি। অন্যপ্রার্থীরা হলেন- জাকের পার্টির সাজেদুর রহমান (গোলাপ ফুল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বক্তিয়ার রহমান (হাতপাখা)।

জানাগেছে, শার্শা উপজেলার এগারটি ইউনিয়ন ও বেনাপোল পৌরসভা নিয়ে গঠিত জাতীয় সংসদের নির্বাচনী এলাকা- ৮৫ যশোর -১ (শার্শা) আসন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৫৮ হাজার ৭৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ২৯ হাজার ২ শ ৯৩ জন ও মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ২৮ হাজার ৭ শ ৮২ জন।
এ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ আফিল উদ্দিন আওয়ামীলীগের ব্যানারে দুইবার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনে ২০ দলীয় প্রাথী জামায়াতের মাওলানা আজিজুর রহমানকে হারিয়ে প্রথম বারের মত এমপি নির্বাচিত হন।

সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হন। ২০০১ সাল থেকে এ যাবদ কাল পর্যন্ত সুখে দুখে সাধারণ মানুষের পাশে থেকে তিনি নিজের অবস্থান সুদৃঢ় করে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন।

জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের প্রতিনিধি হিসাবে তিনি এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। এ নির্বাচনী এলাকার পাকা রাস্তা নির্মান, বিদ্যুতায়ন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবণ নির্মান করেছেন। বিভিন্ন ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুদান প্রদান, শিক্ষার মান উন্নয়ন ও অসুস্থ্য, অসহায়, দুস্থ ব্যাক্তিদের নিজ তহবিল থেকে আর্থিক অনুদান প্রদানের মাধ্যমে এলাকার মানুষের মনিকুঠায় অবস্থান করছেন তিনি।

এ ছাড়া এ নির্বাচনী এলাকার গরীব অসহায় মানুষের চিন্তা মাথায় নিয়ে তাদের কর্মসংস্থনের জন্য শেখ আফিল উদ্দিন শার্শায় গড়ে তুলেছেন ‘আফিল জুট উইভিং মিলস্ লিঃ’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান। এখানে হয়েছে ৫ হাজারের অধিক সংখ্যক মহিলার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা।

যশোর – ১ (শার্শা) আসনের ভোটার আওয়াল হোসেন জানান, একজন জননেতা যেমন হওয়া উচিৎ ঐতিহ্যবাহী আকিজ পরিবারের সন্তান শেখ আফিল উদ্দিন ঠিক তেমনই। এতো ধনী পরিবারের সন্তান হওয়ার পরও এতো সাধারণ জীবণ-যাপন কোন সাধারণ মানুষের পক্ষে সম্ভব না। তাই তিনি অসাধারণ। সাংসদ সদস্য হিসেবে আমরা অসাধারণ এই ব্যক্তিকেই চাই।
শার্শার বাগআঁচড়া বাজারের ব্যবসায়ীরা বলেন, গত ১০ বছরে এই এলাকায় ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে কোন রূপ চাদাবাজীর সন্মুখিন হইনি। দল মতের উদ্ধে আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন। ব্যক্তি হিসেবে সবাই তাকে ভালবাসে, শ্রদ্ধা করে।

এ আসনে দলমত নির্বিশেষে যার কাছেই জানতে চাওয়া হয়েছে, সবাই এক বাক্যে শেখ আফিল উদ্দিনের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। স্থানীয়দের বিবেচনায় তাই যশোর -১ (শার্শা) আসনে জনপ্রিয়তায় সবচেয়ে এগিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ আফিল উদ্দিন।