রায়পুরে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী-পুত্রকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম

0
13

রায়পুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার বামনী গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী-পুত্রকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। আহত পেয়ারা বেগম (৬৫) ও আব্দুল্লাহ কাউসার সবুজকে (৩৫) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ও ভূমির জমা-খারিজ খতিয়ান খুলতে সহায়তা না করায় শুক্রবার সন্ধ্যা রাতে ওই এলাকার তোরাব পাটওয়ারী বাড়ির সম্মুখে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ক্ষতিগ্রস্তরা রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্তদের সূত্রে জানা যায়, মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম পাটওয়ারীর পুত্র আব্দুল্লাহ কাউসার সবুজ পেশায় একজন দলিল লেখক। তিনি রায়পুর দলিল লেখক সমিতির সদস্য। একই বাড়ির প্রবাসী জাকির হোসেন পরিবারের সাথে তাদের পূর্ব বিরোধ রয়েছে। এরপরও পেশাগত কারণে সবুজকে জাকিরদের জমি জমা-খারিজ খতিয়ান খুলে দেওয়ার অনুরোধ জানালে জাকির তাতে সহায়তার আশ্বাস দেন। পরবর্তীতে জমা-খারিজ সম্ভব নয় জানিয়ে কাগজপত্র ও টাকা ফেরত দেন সবুজ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জাকির হোসেনের পুত্র শান্ত (১৮), ফাহিম (২৩) ও আমিন উল্যার পুত্র গণির নেতৃত্বে ৫/৬ জন মিলে সুবজকে ঘটনার সময় বাড়ির সম্মুখে অতর্কিত আক্রমণ করে তারা। খবর পেয়ে সবুজের বৃদ্ধা মাতা পেয়ারা বেগম ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাদের দু’জনকেই পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে হামলাকারীরা।

মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী পেয়ারা বেগম বলেন, তুচ্ছ ঘটনায় যারা আমার ছেলে ও আমাকে অমানবিকভাবে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেছে আমি তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।
হামলার অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও তাদের কাউকে পাওয়া না যাওয়ায় তাদের বক্তব্য জানা যায়নি। ঘটনার পর পরই তারা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

রায়পুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মোহাম্মদ সোলাইমান বলেন, এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।