রূপগঞ্জে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে মধুখালীতে ফসলি জমি ও বসতঘরে বালি ফেলা বন্ধ, এলাকায় স্বস্তি

0
945

রিপন মিয়া, রূপগঞ্জ, (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মধূখালীতে একটি প্রভাবশালী মহলের জমি ক্রয় না করে জোর করে বালি ফেলে দখলে নেয়ার চেষ্টা করে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে বুধবার(০৩ মার্চ) সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম গ্রামবাসিকে সঙ্গে নিয়ে বালি ফেলার পাইপ ভেঙ্গে দেন।

এ সময় বালি ফেলার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থার হুসিয়ারি দিলে তাৎক্ষণিক বালি ফেলা বন্ধ রাখে। তবে পরবর্তিতে জমি না কিনে বালি ফেললে কঠোর ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান ইউএনও মমতাজ বেগম। তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফসলি জমি ও বসতঘর বিনষ্ট করে মানুষের মনে কষ্ট দিয়ে যে কোন কাজ করতে নিষেধ করেছেন। সুতরাং কোন প্রভাবশালীকে জোর করে অন্যায়ভাবে বালি ফেলতে দেয়া হবে না।

পরিদর্শনকালে মধূখালীর হাজারো নারী পুরুষ গ্রামটি রক্ষায় প্রশাসনের কাছে আকুতি জানায়।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন যাবৎ কিছু আবাসন কোম্পানী ও প্রভাবশালী মহল পিতলগঞ্জ ও মোগলান মৌজার ফসলি জমি ও বসতঘরে জোর করে বালি ফেলে দখলে নিতে চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী ,জেলা ও উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ করেন।

রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হোসেন ভুঁইয়া রানু বলেন, বালি যারা ফেলে তাদের কাছে আমরাও অসহায়। আমার জমিতেও তারা বালি ফেলতে শুরু করেছে।