সড়ক দুর্ঘনা রোধে দায়িত্বশীলতার কোন বিকল্প নেই

0
40

এস এম জাকির হোসাইন : সড়ক দুর্ঘটনা যেন সব সময় হয়ে চলেছে। এটি যেন এখন নিয়তির লিখন হয়ে দাঁড়িয়েছে। চালকদের বেপরোয়া ও অভার স্পীড এর কারনে ও ট্রাফিক আইন না মানার কারনে অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা হয়ে থাকে। অনেক পথচারীরা অজ্ঞাতর কারনে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপারের কারনে দুর্ঘটনা অনিবার্য হয়ে দাঁড়ায়। বিষয়টি এখন এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে ঘর থেকে বের হয়ে কি নিশ্চিত ভাবে ঘরে ফের যাবে? এই প্রশ্নের উওর পাওয়া খুব কঠিন।

কারন আশস্কাজনক হারে বেড়ে চলেছে সড়ক দুর্ঘটনা। প্রায় প্রতি দিন কোন না কোন এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনা শিকার হয়ে অকালে মৃত্যুবরন করছে মানুষ। কোনো দুর্ঘটনায় গোটা পরিবার ও শেষ হয়ে গেছে। এমন বাস্তব নজির বয়েছে। আর এই সব দুর্ঘটনার জন্য দায়ী বেপরোয়া বাস ও ট্রাকচালকরা অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া গড়ে ওঠা অদক্ষ চালকদের কারনেই। একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এই সব দুর্ঘটনার জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্র চালকের বেপরোয়া আচারন দায়ী হলেও চালকদের জবাবদিহিতার মধ্যে আনার কোন ব্যাবস্থা নেই। কারন বাসট্রাক মালিক ও চালকদের শক্তিশালী সংগঠনের কারনে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী চালকদের শাস্তির সম্মুখীন হওয়ার ঘটনা একেবারে বিরল।

আইনের ফাঁক দেখিয়ে আধিকাংশ ক্ষেত্রে ঘাতক চালকেরা পার পেয়ে যায়। দেশে বৈধ গাড়ির চেয়ে বৈধ চালকের সংখ্যা খুব কম। সঠিক ভাবে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নন, এমন চালকের সংখ্যাও কম নয়। আবার এই চালকদের পেছনে রয়েছে রাজনৈতিক পৃষ্টপোষকতা। আর এই পৃষ্টপোষকরা অবৈধ ও প্রশিক্ষণ না পাওয়া চালকদের পক্ষে তদবিরে ব্যস্ত। চালকরা ও তাই বেপরোয়া, সড়ক দুর্ঘটনার পর। অভিযুক্ত চালকের বিরুদ্ধে করা মামলাও নিস্পত্তি হয়েছে। চালকের শাস্তি হয়েছে এমন নজির খুজে পাওয়া যাবেনা। দেশের প্রচলিত আইনে তাদেরকে বেশি দিন আটকিয়ে রাখা যায় না।

আজ পর্যন্ত আমাদের সড়ক নিরাপদ হলো না সড়কের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা গেলো না সড়ক পথে কোথায় বের হওয়া মানে প্রান হাতে নিয়ে বের হওয়া। একই সঙ্গে এটাও ঠিক যে দেশের বিভিন্ন স্হানে পথচারীদের কারনেও অনেক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করতে হলে সবার আগে প্রয়োজন আইনের প্রয়োগ ট্রাফিক আইন আরো কঠোর করতে হবে। লাইন্সে বিহিন চালকদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্তা নিতে হবে। আমাদের সড়ক গুলো নিরাপদ করা না গেলে ভবিষ্যতে দুর্গতি আরো বাড়বে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে দায়িত্বশীলতার কোন বিকল্প নেই। চালক হোক কিংবা যাত্রী হোক দুর্ঘটনা রোধে সবার মধ্যে দায়িত্বশীলতা গড়ে উঠলে প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষের অকাম্য মৃত্যুর মিছিল থামিয়ে যাবে । একটি দুর্ঘটনা যেন সারা জীবনের কান্না না হয়, তা খেয়াল রাখাতে হবে।