হিন্ধু ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে প্রতিমা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে মৃৎশিল্পীরা

0
170

মোরশেদুল আলম চৌধুরী–স্টাফ রিপোর্টার : হিন্ধু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে চট্টগ্রামে প্রতিমা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছেন মৃৎশিল্পীরা।চট্টগ্রামের সিতাকুন্ড, মিরসরায়, রাউজান, রাঙ্গুনিয়া,ফটিকছড়ি,হাটহাজারী,সন্দিপ,চট্টগ্রাম মহানগর, বোয়ালখালী, আনোয়ারা, পটিয়া, চন্দনাইশ, বাঁশখালী, সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া উপজেলার সনাতন ধর্মালম্বীদের অনুসারী মৃৎশিল্পীরা দিনরাত প্রতিমা তৈরীর কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,রাউজান পৌরসভার ৬নম্বর ওয়ার্ডের সুলতানপুর আচার্য পাড়ায়,সুলতানপুর বুড়া ঠাকুর আশ্রম,রাউজান ফকিরহাট, রাউজান পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাইন্যা পুকুর পাড়, রাউজানের নোয়াপাড়া পথের হাটে চলছে মৃৎশিল্পীদের প্রতিমা তৈরির কাজ। রাউজান পৌরসভার ৬নম্বর ওয়ার্ডের সুলতানপুর আচার্য পাড়ায় প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত প্রশান্ত আচার্য জানান, রাউজানের বিভিন্ন এলাকার পুজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করার জন্য তিনি ৫০টি প্রতিমা তৈরির কাজ নিয়েছেন।

প্রতিটি প্রতিমা তৈরি বাবদ সনাতনী ধর্মীয় সম্প্রদায়ের লোকজন ও পুজা উদযাপন কমিটি থেকে ৩০ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা করে দাম নির্ধারণ করে অর্ডার নিয়েছেন। তিনি চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন এলাকা ও রাঙামাটিতে দুর্গোৎসব উপলক্ষে প্রতিমা তৈরির কাজ করেন। রাউজান উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ চৌধুরী জানান রাউজানের ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় এবছর ২শ ২৯টি পুজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করা হবে । রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামিম হোসেন রেজা বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে চট্টগ্রামের রাউজানে সব চেয়ে বেশি পুজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করা হয়। এ বছর রাউজানের ১৪টি ইউনিয়নে ও পৌরসভার ২শ ২৯টি মন্ডপে দুর্গোৎসব পালন করা হবে । সনাতন ধর্মীয় অনুসারীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবসা জোরদার করার জন্য রাউজান উপজেলা প্রশাসন ও রাউজান থানা পুলিশ ব্যাপক প্রস্ততি নিয়েছে ।

নিরাপত্তা প্রদানের জন্য পুলিশ, আনাসার বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত থাকবে বলে জানান রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্ল্যাহ। আগামী ১৬ অক্টোবর থেকে শুরু হবে সনাতন ধর্মীয় অনুসারীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শুরু হবে ।

সাতকানিয়া উপজেলা গিতা শিক্ষা কমিটির প্রচার সম্পাদক বাবু শংকর কান্তি দাশ বলেন,আমরা শারদীয় দুর্গোৎসবের জন্য প্রশাসনের সাথে পরামর্শ করে সার্বিক নিরাপত্তাসহ সব প্রস্ততি গ্রহন করেছি বলে জানান।